কলাপাড়ায় সড়ক মেরামতের দাবিতে মানববন্ধন ও সমাবেশ

0

কলাপাড়া প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার ধানখালী ইউনিযনের লোন্দা-নমরহাট ও লোন্দা-কালু মিয়ার বাজারসহ কলেজ বাজার সড়ক তিনটির এখন চরম বেহাল অবস্থা হয়ে পরেছে। অনেক আগেই সিলকোট উঠে গেছে। হাটু সমান খানাখন্দে একাকার হয়ে গেছে। বড় যনবাহন তো দূরের কথা ছোট কোন যানবাহনও চলাচল করতে পারছে না। এক কথায় বলতে গেলে পথচারিদের হাটাচলা করাও এখন বন্ধের উপক্রম হয়েছে। অসহায় ও ভুক্তভোগী হাজারো মানুষ কোন উপায় না পেয়ে অবশেষে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় বেহালদশার সড়ক তিনটি মেরামতের দাবিতে ওই সড়কে দাঁড়িয়ে মানববন্ধন করেছেন। প্রায় ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ অংশ নেয়। কালু মিয়ার হাট সংলগ্ন সড়কে এ মানববন্ধন সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন গাজী রাইসুল ইসলাম রাজীব। বক্তব্য রাখেন সমাজসেবক শুক্কুর আলী মৃধা, ইউপি মেম্বার বজলুর রহমান, চম্পাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বাচ্চু মোল্লা, ছাত্রনেতা মাসুম বিল্লাহ, সজল মিয়া, জয়নাল মৃধা, কৃষক জলিল মৃধা, শিক্ষক আতাহার উদ্দিন বিশ্বাস প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, তাপ বিদ্যুত কেন্দ্রের মালামাল পরিবহনে ব্যবহৃত এনইপিসি, এনডিই ও সিইসি এর ভারি যানবাহন চলাচল করায় ধানখালী ও চম্পাপুর ইউনিয়নে চলাচলের প্রধান ১৯ কিলোমিটার সড়ক সম্পুর্ণভাবে বিধ্বস্ত হয়ে গেছে। সিলকোট উঠে এখন খানাখন্দে একাকার হয়ে গেছে। কোন ধরনের যানবাহন চলাচল তো দুরের কথা পায়ে হেটে যোগাযোগের উপায় নেই। প্রতিদিন ঘটছে দুর্ঘটনা। আহত হচ্ছে মানুষ। তারা আগামি পাঁচদিনের মধ্যে ভাঙ্গা এসড়ক মেরামত করার জন্য ওইসব কোম্পানির কাছে দাবি করেছেন। নইলে অনির্দিষ্টকালের জন্য সড়ক অবরোধের মতো কর্মসূচি দেয়ার আল্টিমেটাম দিয়েছেন।
স্থানীয়দের সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে এ সড়কগুলো বিধ্বস্ত হওয়ায় চারটি প্রাইমারি স্কুল, একটি কলেজসহ কয়েকটি মাদ্রাসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের যাওয়া-আসা বন্ধের উপক্রম হয়েছে। শিশুদের দুর্ভোগ সবচেয়ে বেশি। ভাড়াটে হোন্ডাসহ অটোচালকরা বেকার হয়ে গেছে। বর্তমানে দু’টি ইউনিয়নের দুর্ভোগের যেন শেষ নেই। সীমাহীন এ দুর্ভোগ থেকে ভূক্তভূগীরা পরিত্রাণ চেয়েছেন।
স্থানীয়দের অভিযোগ, পায়রা তাপ বিদ্যুত কেন্দ্রের মালামাল সরবরাহের জন্য উপযোগী সড়ক না করেই মালামাল বোঝাই ভারি যানবাহন চলাচল করায় জনগুরুত্বপুর্ন সড়কটির এমন বেহালদশা হয়েছে।

Share.

About Author

Leave A Reply